Thursday, August 17, 2017

যে দুই কারনে দেশে ভয়াবহ বন্যা হচ্ছে।(শেয়ার করে সবাইকে জানিয়ে দিন)

অনলাইন নিত্যবার্তাঃতিস্তার উজানে ভারতের দৌমহনী থেকে পানি ধেয়ে আসছে বাংলাদেশের দিকে। তিস্তার পানি বিপদসীমার ৩৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এ অবস্থায় তিস্তার উজানে ভারতের অংশে ভারতীয় সেচ মন্ত্রণালয় রেড অ্যালার্ট জারি করেছে।
পাশাপাশি তিস্তার ডালিয়া পয়েন্টে বিশেষ সতর্কতা সঙ্কেত জারি করা হয়েছে। সেই সঙ্গে তিস্তা অববাহিকার সব ইউপি চেয়ারম্যানের সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করে তিস্তায় বসবাসরতদের নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে আনার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
ডালিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, তিস্তার উজানে ভারতে পানি বিপদসীমা অতিক্রম করায় সব ইউপি চেয়ারম্যানের মোবাইল ফোনে নদীতে বসবাসরতদের সরিয়ে আনার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, তিস্তায় বসবাসরতদের বাঁধসহ উঁচু স্থানে আশ্রয় নেয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
একদিকে মুষলধারে বৃষ্টি অন্যদিকে তিস্তার পানি বৃদ্ধিতে চরম বিপাকে পড়েছে তিস্তার পাড়ের বন্যাদুর্গত এলাকার লোকজন। উজানের ঢলের পানি ঘোলা, বিভিন্ন গাছের পাতা ও কচুরিপানা থাকার কারণে এলাকাবাসীর ধারণা উজানে বন্যার পানি আসছে
তিস্তা নদীর উজানে বসবাস করা পূর্ব ছাতনাই ইউনিয়ন ও পূর্ব খড়িবাড়ি গ্রামের বাসিন্দাদের নিরাপদে সরিয়ে আনা হয়েছে। সেই তিস্তা উপকূলীয় এলাকায় বসবাসরত বিভিন্ন গ্রামে মাইকিং করে রেড অ্যালার্ট সম্পর্কে বলা হয়েছে। পূর্ব খড়িবাড়ি গ্রামের মিরাজ উদ্দিন বলেন, পানির স্রোতের অবস্থা দেখে বুঝা যায় আশপাশের গ্রামগুলো সব ডুবে যাবে। সেই সঙ্গে বড় ধরনের বন্যা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
পাউবো অফিসে সূত্রে জানা যায়, তিস্তার টানা কয়েকদিনে বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলের কারণে তিস্তায় বন্যা দেখা দিয়েছে। তিস্তার ব্যারেজের ৬০ কিলোমিটার উজানে ভারত গজলডোবা বাঁধটি ১৯৯৮ সালে নির্মাণ করেন। গজলডোবা বাঁধটির ৫৪টি গেটের মাধ্যমে উজানে বন্যা হলে সকল গেট খুলে দিলে ধেয়ে আসছে বন্যার পানি ও বাংলাদেশের অংশে ভারি বৃষ্টিপাতের কারণে তিস্তা ব্যারেজের ডালিয়া পয়েন্টে এলাকায় বন্যা দেখা দেয়। সন্ধ্যা ৭টার দিকে কিসামত চরের আবুল কালাম জানান, দ্রুত গতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে তিস্তার পানি। বিকেল থেকে তিস্তার পানি বৃদ্ধি থেকে মনে হচ্ছে বড় ধরনের বন্যা দেখা দেবে। ভারি বর্ষণ ও উজানের ঢলে তিস্তা নদীর পানি শনিবার সকাল ৬টা থেকে নীলফামারীর ডালিয়া পয়েন্টে বিপদসীমার (৫২ দশমিক ৪০) ২৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
নদীর শোঁ শোঁ শব্দ আর গর্জন তিস্তা অববাহিকা কাঁপিয়ে তুলেছে। অপরদিকে বুড়ি তিস্তা নদীটি ডিমলা উপজেলার পশ্চিম ছাতনাই এলাকায় বাঁধ ভেঙে গেছে। এছাড়া তিস্তা ব্যারাজ সেচ প্রকল্পের জলঢাকাস্থ দুন্দিবাড়ির অদূরে দিনাজপুর প্রধান সেচ ক্যানেলের ডানতীরের বাঁধ দুইটির বিভিন্ন স্থানে বিধ্বস্ত হয়েছে!

Tuesday, August 15, 2017

ফরিদপুরের সালথায় যথাযথ মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত

আল আমিন মিয়া,নিজেস্ব প্রতিনিধিঃনিজস্১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উদ্ যাপন উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার সকালে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
এসময় একে একে সালথা উপজেলা চেয়ারম্যান,উপজেলা নির্বাহী অফিসার,  পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামীলীগ এবং তাঁর বিভিন্ন সহযোগি ও অঙ্গসংগঠন, উপজেলা পরিষদ, সরকারি-বেসরকারি দপ্তর, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সাংস্কৃতিক সংগঠন পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপরে একটি শোক র্যালি বের হয়।

Tuesday, July 11, 2017

প্রিয়নবী (সাঃ) সকাল সন্ধ্যা এই দোয়া পড়তেন

ইসলাম ডেস্ক, নিত্য বার্তা ~
সকাল-সন্ধ্যায় আল্লাহ তাআলার নিকট এ নেয়ামত লাভের জন্য প্রার্থনা করা প্রত্যেক মুমিন মুসলমানের একান্ত কর্তব্য। কারণ স্বয়ং রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আল্লাহ তাআলার নিকট এ বিষয়গুলোর প্রার্থনা করেছেন। যা উম্মতে মুহাম্মাদির জন্য শিক্ষা।
হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেছেন প্রিয়নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলতেন-
উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকাল হুদা; ওয়াত তুক্বা; ওয়াল আ’ফাফা; ওয়াল গেনা।
অর্থ : হে আল্লাহ আমি আপনার কাছে হেদায়েত কামনা করি; এবং আপনার ভয় তথা পরহেজগারি কামনা করি; এবং আপনার কাছে সুস্থতা তথা নৈতিক পবিত্রতা কামনা করি এবং সম্পদ তথা সামর্য্ কামনা করি। (মুসলিম, তিরমিজি, ইবনে মাজাহ ও মুসনাদে আহমদ)
আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে সকাল-সন্ধ্যায় হাদিসে বর্ণিত দোয়ার মাধ্যমে হেদায়েত, তাকওয়া, সুস্থতা এবং ধন-সম্পদ অর্জনের শক্তি-সামর্থ্য অর্জন করতে আল্লাহর নিকট আশ্রয় প্রার্থনার তাওফিক দান করুন। আমিন।
‘মুমিনগণ! তোমরা নবীর কন্ঠস্বরের উপর তোমাদের কন্ঠস্বর উঁচু করো না এবং তোমরা একে অপরের সাথে যেরূপ উঁচুস্বরে কথা বল, তাঁর সাথে সেরূপ উঁচুস্বরে কথা বলো না। এতে তোমাদের কর্ম নিস্ফল হয়ে যাবে এবং তোমরা টেরও পাবে না’।(সুরা হুজুরাত:২)
এখানে আল্লাহ বলেছেন যে, রাসূলের (সা.)-এর কথার উপর কথা বললে [যার ভিতর ভিন্ন মত পোষণও আসবে] আমাদের আমল বরবাদ হয়ে যেতে পারে।

Friday, June 9, 2017

দৈনিক নিত্যবার্তায় সাংবাদিক নিয়োগ চলছে।আপনিও যোগ দিতে পারেন


দেশের সকল জেলা-উপজেলা পর্যায় পুরুষ ও মহিলা সংবাদদাতা / প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যারা অনলাইন সংবাদ প্রকাশনার সাথে সংবাদ প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করতে ইচ্ছুক তারাই কেবল এই নিয়োগ প্রক্রিযায় অংশ গ্রহণ করতে পারবেন। আগ্রহী দক্ষ সংবাদ প্রতিনিধিদের আমাদের নির্ধারিত ফেইজবুক পেজে আপনার জীবন বিত্তান্ত লিখে ম্যাসেজ করতে হবে। আপনার ম্যাসেজ জমা দেওয়ার ২ ঘন্টার মধ্যে নিত্য বার্তা প্রতিনিধি বাচাই কার্যক্রমে নিয়োজিত টিম আপনাদের জীবন বিত্তান্ত পর্যালোচনা করে ফেইজবুকে বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নিত্য বার্তা এর সাথে সংবাদ প্রতিনিধি হিসাবে কাজ করতে পারবে কি না তা নিশ্চিত করবে।
নিয়োগ প্রক্রিযায় অংশ গ্রহণ করার নিয়মঃ
১। আমাদের নির্ধারিত ফেইজবুক পেজ খুজে বার করতে হবে।
২। ফরমটি সঠিক ও নির্ভূলভাবে জীবন বিত্তান্ত লিখে ম্যাসেজ করতে হবে।
জিবন বিত্তান্ত লেখায় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ঃ
১। পাসপোর্ট সাইজের ছবি অবশ্যই থাকতে হবে।
২। ভোটার আইডি কাডের ১ম অংশ ও ২য় অংশ উভয়ই থাকতে হবে অথবা জন্ম নিবন্ধন পাঠাতে হবে।
৩। মোবাইল নম্বর থাকতে হবে।
৪। গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির ০১টি মোবাইল নম্বর থাকতে হবে।
নির্বাচিত প্রতিনিধির বর্তমান সুযোগ-সুবিধাঃ
যেহেতু নিত্য বার্তা.কম সম্পর্ণ নতুক নিউজ পোর্টাল সেই ক্ষেত্রে নিম্নোক্ত সুযোগ সুবিধা বিদ্যমান থাকবে।
১। নিত্য বার্তা.কম কর্তৃপক্ষ্য কর্তৃক চুড়ান্ত প্রতিনিধিদের যোগদান করার ০১(এক) মাস তাদের রিপোর্ট নিয়ে পর্যালোচনা করবে।
২। সিনিয়ারিটি ও দক্ষ অনুযায়ী নিত্য বার্তা.কম এর প্রতিনিধি পদ প্রদান করা হবে।
৩। ১৫ দিন পর ভাল ও দক্ষ নির্বাচিত প্রতিনিধিদের নিত্য বার্তা.কম এর পিভিসি কার্ড প্রদান করা হবে।
৪। এই পিভিসি কার্ডটি তার আইডি কার্ড হিসাবে পরিগণিত হবে।
৫। অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা সময় অনুযায়ী নোটিশ আকারে জানানো হবে।
সংবাদ প্রেরণের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ঃ
১। কোন কপি রাইট সংবাদ প্রেরণ করা যাবে না।
২। প্রেরিত সংবাদের সহিত সংবাদ সর্ম্পকিত ছবি পাঠানোর চেষ্টা করতে হবে।
৩। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সংবাদ প্রেরণ করতে হবে।
৪। সম্পর্ণ বাংলায় SutonnyMJ ফন্টে, কম্পিউটার টাইপকৃত ডকুমেন্ট আকারে সংবাদ প্রেরণ করতে হবে।
৫। প্রতিবেদন প্রেরণকারীর নাম ও মোবাইল নম্বর তার প্রেরণকৃত রিপোর্ট এ থাকতে হবে।
৬। কোন সংবাদ প্রেরণে দেরি করা যাবে না। রিপোর্ট তৈরি করার সাথে সাথেই প্রেরণ করতে হবে।
যে কোন তথ্য সম্পর্কে জানতে আমাদেরকে ফোন করুন :-০১৭১৮-০১৯২৭৪

Sunday, April 30, 2017

পরীক্ষার সময় নিয়ে বিভ্রাট, মানববন্ধনে এইচএসসি পরীক্ষার্থীরা

এইচএসসির পদার্থবিজ্ঞান (সৃজনশীল) প্রথম পত্র পরীক্ষায় নির্ধারিত সময়ের ১৫ মিনিট আগেই কিশোরগঞ্জে পরীক্ষার্থীদের উত্তরপত্র কর্তব্যরত পরিদর্শকেরা টেনে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, সোমবার অনুষ্ঠিত পদার্থবিজ্ঞান (সৃজনশীল) প্রথম পত্রের ৫০ নম্বরের পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত সময় ছিল দুই ঘন্টা ৩৫ মিনিট। কিন্তু প্রশ্নপত্রে দুই ঘন্টা ২০ মিনিট লেখা থাকার অজুহাতে ১৫ মিনিট আগেই তাদের উত্তরপত্র টেনে নেয়া হয়েছে।
নির্ধারিত সময়ের আগে উত্তরপত্র নিয়ে যাওয়ায় উত্তর জানা থাকা সত্ত্বেও কোন পরীক্ষার্থীই নির্ধারিত পাঁচটি প্রশ্নের উত্তর লিখতে পারেনি। উত্তর লিখতে না পেরে বাড়ি ফিরে তারা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। যে পরীক্ষার্থীরা এ প্লাস কিংবা ভাল ফলাফলের আশা করেছিল, তারাও এখন ফল বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে। এ পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার সকালে শহরের সরকারি গুরুদয়াল কলেজের সামনে মানববন্ধন করে এর প্রতিকার দাবি করেছে পরীক্ষার্থীরা। সকাল ১১টা থেকে শুরু হওয়া ঘন্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধন কর্মসূচীতে জেলা শহরের বিভিন্ন কলেজের কয়েকশ’ পরীক্ষার্থী অংশ নেয়। এ সময় পরীক্ষার্থীরা ‘১৫ মিনিটের বলির শিকার আমরা কেন?’, ‘কর্তৃপক্ষের দায় নিবে কে? নিবে কে?’, ‘যেখানে এ প্লাস সেখানে কাঁদবো কেন আমরা?’ ইত্যাদি নানা স্লোগান সম্বলিত প্ল্যাকার্ড বহন করে।
পরীক্ষার খাতায় পুরো প্রশ্নের উত্তর না দিতে পারার কষ্ট জানাতে গিয়ে মানববন্ধনে অনেক পরীক্ষার্থীই কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। গুরুদয়াল কলেজের পরীক্ষার্থী  কাঁদতে কাঁদতে বললো, ‘আমার এসএসসিতে জিপিএ-৫ ছিলো। এইচএসসিতেও জিপিএ-৫ পাওয়ার আশা করেছিলাম। সে রকমভাবে প্রস্তুতিও নিয়েছিলাম। কিন্তু প্রশ্নপত্রে লেখা ভুল সময় কেড়ে নিয়েছে আমার স্বপ্ন। ৫০ নম্বরের পরীক্ষার মধ্যে মাত্র ৩৫ নম্বরের উত্তর দিতে পেরেছি আমি।’
আর হতাশা নিয়ে মানববন্ধনে দাঁড়াতে বাধ্য হয়েছে উল্লেখ করে এসব পরীক্ষার্থীদের দাবি, তাদের এই হতাশা থেকে বাঁচাতে অবিলম্বে সংশ্লিষ্টদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। তারা জানিয়েছে, কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের সরকারি গুরুদয়াল কলেজ, সরকারি মহিলা কলেজ, ওয়ালিনেওয়াজ খান কলেজ, পৌর মহিলা কলেজ ও মডেল কলেজের বিজ্ঞান বিভাগের সহস্রাধিক পরীক্ষার্থীর একই অবস্থা।
এদিকে ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক তপন কুমার সরকার গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত দেয়া এক বক্তব্যে বলেছেন, পদার্থবিজ্ঞানের পরীক্ষার সময় দুই ঘণ্টা ৩৫ মিনিট। কিন্তু প্রশ্নপত্রের মডারেটর বা সেটারের ভুলের কারণে সময়টা দুই ঘণ্টা ২০ মিনিট লেখা হয়েছে। বিষয়টি জানার পর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সব কেন্দ্র সচিবকে মুঠোফোনে বার্তা পাঠিয়ে দুই ঘণ্টা ৩৫ মিনিট পরীক্ষা নিতে বলা হয়।

Wednesday, April 19, 2017

এইচএসসিতে আলাদা পাসের বিধান অবৈধ ঘোষণা করেছেন হাই কোর্ট

বাংলাদেশের উচ্চ-মাধ্যমিক/ এইচএসসি পরীক্ষায় তিনটি বিষয়ে নৈর্ব্যত্তিক, সৃজনশীল ও ব্যবহারিক অংশে আলাদা আলাদাভাবে পাসের বিধান অবৈধ ঘোষণা করে রায় দিয়েছেন হাই কোর্ট।
তাসনীম রাইসা নামের এক শিক্ষার্থীর গত বছর করা রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে এবছর ২৯ জানুয়ারি ঘোষিত এই রায়ের পূর্ণাঙ্গ অনুলিপি বুধবার প্রকাশিত হয়েছে। রায়ে এইচএসসির পদার্থ বিজ্ঞান, রসায়ন ও জীববিজ্ঞানের নৈর্ব্যত্তিক, সৃজনশীল ও ব্যবহারিকে আলাদাভাবে পাসের বিধানকে অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে।
ঢাকা সিটি কলেজ থেকে ২০১৩’র এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী ঐ শিক্ষার্থী বাংলা, জীব বিজ্ঞান, গণিতে এ প্লাস এবং ইংরেজি ও পদার্থ বিজ্ঞানে এ গ্রেড এবং রসায়নে এফ গ্রেড পান। ঐ বছর ৩ অগাস্ট তার এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়।
বিডিনিউজ২৪ ডটকমের এক
প্রতিবেদনে জানা যায়, রায়ে বলা হয়, “এখানে দেখা যায়, রিটকারী রসায়নের অন্য পার্টগুলোতে উত্তীর্ণ হলেও ব্যবহারিকে প্রয়োজনীয় নম্বর অর্জনে ব্যর্থ হয়েছেন। আমাদের মত হচ্ছে, নৈর্ব্যত্তিক, সৃজনশীল ও ব্যবহারিকে পাস করার বিধানকে আইন সমর্থন করে না। এ কারণে তাকে পাস বলে বিবেচনা করা উচিত।”
‘”পুনঃগণনা”র পরিবর্তে “পুনঃনিরীক্ষা” করা যাবে না বলে যে বিধানের কথা বলা হচ্ছে সেটার গেজেট করা হয়নি। অথচ এ ধরনের বিধান করতে হলে গেজেট করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।’
রায়ে আরও বলা হয়, “একজন শিক্ষার্থীও দেশের নাগরিক। তাদের উত্তরপত্র যথাযথভাবে নিরীক্ষার প্রত্যাশা আইনসম্মত। যখন তারা নিশ্চিত থাকেন যে, তারা পরীক্ষা পাস করার মতো ভালো করেছেন, সেক্ষেত্রে এক বা একাধিক বিষয়ে ফেল তাদের পুরো ভবিষ্যতকে বিপদাপন্ন করে তোলে।”
“এই (মামলার) ক্ষেত্রে আবেদনকারী এসএসসিতে ‘এ’ প্লাস পেয়েছেন। এইচএসসিতেও একই ফল প্রত্যাশা করেছেন। এই অবস্থায় যেখানে পুনঃনিরীক্ষার বিষয়ে বিধিতে কিছু বলা নেই, সেখানে তার অনুকূলে সিদ্ধান্ত নেয়া যেতে পারে। উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষায় অস্বীকৃতি যুক্তিসঙ্গত হওয়া উচিত।”
“উত্তরপত্রের পুনঃনিরীক্ষার কোনো বিধান না থাকায় রিটকারীর পক্ষেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষায় অস্বীকৃতি অবৈধভাবে করা হয়েছে,” বলেছে আদালত।
রায়ে বলা হয়, “যেহেতু আলাদাভাবে পাস করতে হবে বলে কোনো গেজেট করার বিধান নেই এবং কেবল ব্যবহারিকে ফেল করেছেন বলে তাকে ফেল বলা হচ্ছে; সে কারণে তিনি (রিটকারী) সকল বিষয়ে পাস করেছেন বলে ধরে নেয়া হবে। এখন তিনি চাইলে পুনঃনীরিক্ষার জন্য আবেদনও করতে পারেন।”
রিট আবেদনকারীর আইনজীবী শাহ মোহাম্মদ আহসানুর রহমান অর্থসূচককে বলেন , তাসনীম রাইসা ২০১৩ সালে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দেন- “এজন্য আমরা বিজ্ঞানের ওই তিনটি বিষয়ে আলাদাভাবে পাস করার বিধানকে চ্যালেঞ্জ করেছি। আদালত আমাদের আবেদন মঞ্জুর করে রায় দিয়েছেন।”
তিনি আরও জানান, কোনো গেজেট প্রকাশ ছাড়াই অন্যান্য বিষয়েও একই নিয়ম চালু করায় অন্য বিষয়গুলো নিয়ে কেউ আদালতে আসলে তারাও এ রায়ের সুবিধা পাবেন।

Friday, February 17, 2017

How to change Gmail Password.

update your
Gmail Password  in a few easy
steps.
1. Log into your Gmail account, and
click the gear icon in the upper
right-hand corner.
2. Click “Settings.”
3. Click “Accounts and Import” at the top.
4. Step: First, you'll be prompted to re-enter your
current password.
5.than Type your New password.
6.again type confirm new password and click Save button.